• Wed. Aug ৪, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

রোমে ১৪ বছর পর্যন্ত মৃত মার পেনশন খেয়ে যাচ্ছিলো এক সন্তান।

Byadilzaman

Jul 16, 2013

আসলে দুনিয়াতে যে কতো রকমের ধান্দাবাজ রয়েছে সেটা বলা মুশকিল। কেউ করে বড় কিছুর ধান্দা আবার কেউ ছোট কিছু করতে পেরেই নিজেকে অনেক চালাক মনে করে। আবার এক এক দেশের ধান্দা কিন্তু এক এক রকমের হয়ে থাকে। যেমন আমাদের বাংলাদেশের মানুষ ধান্দা করে আরো হাইরিস্ক নিয়ে কেননা আমরা অন্যান্য দেশের মানুষের কাছ থেকে অনেক চালাক এবং আমাদের প্রশাসনের নিয়মও কিন্তু অন্যান্য দেশের চেয়ে অনেক কঠিন ও ভিন্ন, কিন্তু তারপরেও আমাদের দেশের মানুষ ঠিকি কোন না কোন উপায়ে তাদের ধান্দা করে যাচ্ছে। ইতালির রোমের via alessandriono নামক এলাকায় আন্না মারিয়া নামক এক মহিলা প্রায় দীর্ঘ ১৪ বছর যাবত প্রশাসনের চোখ ফাকি দিয়ে তার মৃত জন্মদাতা মার পেনশন তুলে হজম করে চাচ্ছিল। সে প্রতিমাসেই নির্দিষ্ট তারিখে তার মার পক্ষ হয়ে মার প্রতিনিধিত্ব নিয়ে পোস্ট অফিসে হাজির হয়ে যেতো পেনশনের টাকা তুলতে,যা পোস্ট অফিসের জন্যও খুব নরমাল একটি ব্যাপার যে, বৃদ্ধ মার পরিবর্তে মেয়ে এসেছে টাকা তুলতে, আর এভাবে কেটে যায় দীর্ঘ ১৪ টি বছর। তাহলে এবার দেখুন ইতালিয়ানরা কতো বোকা।

এরকম ঘটনা এখানে এটিই প্রথম নয় এর আগেও আরো অনেক দেখা গিয়েছে। যেমন আপনাদের আমার পরিচিত একজনের একটি ঘটনা বলি ঠিক এই রকম এক ইতালিয়ান কাপল দীর্ঘ ১৮ বছর দুই দেশ থেকে পেনশন নিতো, নিয়ম অনুযায়ী আপনি যে কোন এক দেশ থেকে পেনশন খেতে পাড়বেন। ওরা যা করেছিল? ওরা বিয়ের পর পরি ইতালি থেকে লন্ডনে চলে গিয়েছিল তাও ৪০ বছরের উপরে হবে, কিন্তু ওদের নিজস্ব ভিটা বাড়ি ছিল ইতালিতে তাই প্রতি বছরের গ্রীষ্মের ছুটিতে ওরা ইতালিতে চলে আসতো এভাবে ইতালিতে দেখাতো যে ওরা ইতালি থাকে আবার ওখানে দেখাতো যে ওরা ওখানে থাকে, এভাবে ওদের পেনশনের সময় হলে দুই দেশেই অ্যাপ্লাই করে দিব্যি দুই জায়গার পেনশন খেয়ে যেতো।

যাই হোক এরকম ইউরোপের আরো অনেক অনেক তথ্য এখন থেকে আপনারা আমাদের সাইট থেকে পাবেন। এবার আসি আসল কাহিনীতে ইতালির সেই মেয়ে যে ১৪ বছর ধরে মার পেনশন খেয়ে যাচ্ছিলো সে অবশেষে ধরা পড়ে, কেননা ইতালির কাজ মন্ত্রনালয় অফিস থেকে একটি জরিপ করা হয়। যে ১০০ বছরে উপরে যারা পেনশন নিচ্ছে তাদের সম্পর্কে গোপনে তথ্য নেওয়া হবে যে, আসলে এই ১০০ বছর বয়স পর্যন্ত তারা কেমন রয়েছে। আর এই জরিপে দেখা যায় যে,মেয়েটির মার বয়স ১১৪ বছর চলছে, আর এটাই হয়ে দাড়ায় ওর প্রতি নজর দ্বারী করার প্রধান কারন। বর্তমানে ওর উপর একটি মামলা করা হয় যেখানে তার কাছ থেকে ১.১২,০০০ এক লক্ষ্য বারো হাজার ইউরো জব্দ করা হবে। যেমন ওর নামে যাই রয়েছে সেটা সরকার জব্দ করে নিবে। তাহলে কি দাঁড়ালো ও এতদিন মজা করে সাবাইকে ফাঁকি দিয়ে চাচ্ছিল কিন্তু সত্যের একদিন না একদিন জয় হবেই, এখন ও এতদিন যা হজম করেছে তার চাইতে দিগুন পোহাতে হচ্ছে। তাই দেশে কিংবা বিদেশে কারো সাথে ধান্দা বা অন্যায় কিছু করার আগে চিন্তা করে করবেন,কেননা মনে রাখবেন এক মাসে শীত যায় না।

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে জানতেএখানে ক্লিক করুণতুলে ধরুন  নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান ]] আর আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে রয়েছে অনেক মজার মজার সব ভিডিও সহ আরো অনেক মজার মজার টিপস  তাই এগুলো থেকে  বঞ্চিত হতে না চাইলে এক্ষনি আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে লাইক দিয়ে আসুন। আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে যেতে এখানে ক্লিক করুন।  

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *