• Wed. Aug ৪, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

যে কারণে সাধারণ সর্দি-কাশির কোন প্রতিষেধক নেই।

Byমো: রাসেল

Oct 31, 2013


শীত আসছে। এই সময় সাধারণ জ্বর-কাশি-সর্দির প্রকোপও যেন বেশ বেড়ে যায়। আর বর্তমানে চিকিৎসাবিজ্ঞানের প্রভূত উন্নতি হলেও এই সাধারণ সর্দি-কাশির কোন সমাধান এখন পর্যন্ত নেই। বিজ্ঞানীরা এই রোগ সৃষ্টিকারী জীবাণুর একটি ত্রি-মাত্রিক মডেল তৈরি করে দেখিয়েছেন এর কারণ কি।

University of Wisconsin-Madison এর বায়োকেমিস্ট্রির অধ্যাপক অ্যান পালমেনবার্গ এর নেতৃত্বে একদল গবেষক সর্দি-কাশির জন্য দায়ী একটি ভাইরাসের ক্যাপসিড বা প্রোটিন আবরণ সম্পর্কে বেশ নিখুঁত টপোগ্রাফিকাল মডেল উপস্থাপন করেন। এই ভাইরাসের ব্যপারে ২০০৬ সালের আগ পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা তেমন কিছু জানতেন না। ধারণা করা হয়, শিশুদের যে জ্বর-সর্দি হয়, তার অন্তত ৫০ ভাগের জন্য দায়ী rhinovirus C নামের এই ভাইরাস। এছাড়া শ্বাসকষ্টজনিত রোগ যেমন হাঁপানির জন্যও এই ভাইরাস দায়ী।

সর্দি-কাশির জন্য দায়ী ভাইরাসগুলোকে Family A ও B তে ভাগ করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে ধারণা করা হত এদেরকে গবেষণাগারে খুব সহজেই জন্মানো যায় ও এদের ব্যপারে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব। কিন্তু rhinovirus C এর ব্যপারে এই ধারণা ভুল প্রমাণিত হল। এই ভাইরাসটি ২০০৬ সাল পর্যন্ত গবেষকদের চোখকে ফাঁকি দিতে সক্ষম হয়েছিল। এছাড়া এটিকে গবেষণাগারে জন্মানোও সম্ভব হচ্ছিল না। পরবর্তীতে gene chips ও উন্নততর জিন সিকুয়েন্সিং এর মাধ্যমে দেখা গেল, নতুন এই ভাইরাসটিও অন্যান্য ভাইরাসের সাথে মানবদেহের কোষগুলোতে লুকিয়ে ছিল।

rhinovirus C এর জিনোমের ৫০০ জিন সিকুয়েন্স আর উন্নত বায়োইনফরমেটিক্স ব্যবহার করে নতুন এই ভাইরাসের মডেল তৈরি করেন গবেষকরা, যেটি ভাইরাসটির ক্যাপসিডের একটি ত্রিমাত্রিক উপস্থাপন প্রদান করে। সর্দি-কাশির জন্য দায়ী A ও B প্রজাতির ভাইরাসদের বিরুদ্ধে ওষুধ উদ্ভাবিত হলেও এই রাইনোভাইরাসকে এখনো প্রতিরোধ করা যাচ্ছে না, যেটি কিনা সর্দি-কাশির জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ী।

কিন্তু কেন এর কোন প্রতিষেধক নেই এখন পর্যন্ত? কারণ এই ভাইরাসটির মানুষের দেহের রোগ-প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিয়ে দেহের ভেতর ঢুকে পড়া ও দেহের কোষের সাথে সংযুক্ত হয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়াটি এখনো অজানা। এর সাথে A ও B প্রজাতির ভাইরাসগুলোর কোন মিল নেই। যেকারণে কার্যকর ওষুধ উদ্ভাবন করা যাচ্ছে না। গবেষণাপত্রটি Virology জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে এই লেখায় ক্লিক করে জানুন এবং  তুলে ধরুন। নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। আর আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে রয়েছে অনেক মজার মজার সব ভিডিও সহ আরো অনেক মজার মজার টিপস তাই এগুলো থেকে বঞ্চিত হতে না চাইলে এক্ষনি আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে লাইক দিয়ে আসুন। এবং আপনি এখন থেকে প্রবাস জীবনে আমাদের সাইটের মাধ্যমে আপনার যেকোনো বেক্তিগত জিনিসের ক্রয়/বিক্রয় সহ সকল ধরনের বিজ্ঞাপন ফ্রিতে দিতে পাড়বেন। ]]

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *