• u. Dec ২, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

বাংলাদেশে থানায় সাধারণ ডায়েরি বা জিডি করার নিয়ম!!

ByLesar

May 28, 2013

ব্যক্তিগতভাবে কোনো সমস্যার সমাধান না করা গেলে আইনী সহায়তার প্রয়োজন হয়। বিভিন্ন কারণে থানায় ডায়েরী করা যায়। পর্যাপ্ত তথ্য না থাকায় অনেকে থানায় যেতে চান না বা সাহস করেন না। থানায় অভিযোগ করতে হলে তা নির্দিষ্ট ও স্পষ্ট করে লিখতে হবে। এ ক্ষেত্রে ডিউটি অফিসারের সহায়তা নেয়া যাবে। অভিযোগের একটি কপি থানায় সংরক্ষিত থাকবে এবং আরেকটি অভিযোগকারী নিজের কাছে রাখবেন।

যে সমস্ত কারনে  জিডি করা যেতে পারে?

  • ১. আপনাকে বা আপনার পরিবারকে কেউ হত্যা বা ক্ষতি করার হুমকি দিল। আপনি ভয়ে হিমশিম খাচ্ছেন।
  • ২. আপনার কোনো মূল্যবান জিনিস, কাগজপত্র বা কোনো দলিল হারিয়ে গেছে।
  • ৩. কোনো ধর্তব্য অপরাধ সংঘটিত হতে যাচ্ছে, যা আপনি জেনে ফেলেছেন।
  • ৪. আপনার পরিচিত কেউ নিখোঁজ রয়েছেন। আপনি কী করবেন?

এসব ক্ষেত্রে প্রাথমিকভাবে নিকটবর্তী থানাকে জানানোর দায়িত্ব আপনার। আর এটি জানাবেন একটি সাধারণ ডায়েরির মাধ্যমে, যাকে আমরা সংক্ষেপে জিডি বলে থাকি। এ ধরনের জিডি করার অর্থ হলো_বিষয়টি সম্পর্কে থানাকে জানানো, যাতে থানা কর্তৃপক্ষ সম্ভাব্য অপরাধটি সংঘটিত হওয়ার আগেই ব্যবস্থা নিতে পারে। আবার অপরাধ সংঘটিত হলেও সহজেই পুলিশ ব্যবস্থা নিতে পারে। জিডি কোনো এজাহার বা মামলা নয়। এটি একটি ঘটনার বিবৃতি। তবে অপরাধ সংঘটিত হলে আগে করা জিডি অনেক সময় এজাহারে রূপান্তরিত হতে পারে। এ ধরনের জিডি কোনো এজাহার বা মামলার সমর্থনমূলক দলিলগত সাক্ষ্য হিসেবে অপরাধীর বিরুদ্ধে গৃহীত হয়ে থাকে। এদিক থেকে বিবেচনা করলে একটি জিডি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও মূল্যবান দলিল।

নিচের ভিডিওর মাধ্যমে জিডি করার পদ্ধতি জানা যাবে।


[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে জানতেএখানে ক্লিক করুণতুলে ধরুন  নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান ]]

Lesar

আমিওপারি নিয়ে আপনাদের সেবায় নিয়োজিত একজন সাধারণ মানুষ। যদি কোন বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে আমাকে ফেসবুকে পাবেন এই লিঙ্কে https://www.facebook.com/lesar.hm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *