• Fri. Dec ৩, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

যে দিকগুলো থেকে গ্যালাক্সি এস ৪ আইফোন থেকে এগিয়ে!!

Byandroid-guru

May 18, 2013

আইফোন এবং স্যামসাং একে অপরের সাথে অনেকদিন ধরে প্রতদ্বন্ধীতা করে আসছে। স্যামসাং সম্প্রতি বাজারে উচ্চ গুণসম্পন্ন একটি স্মার্টফোন ছেড়েছে, আর এই ফোনটির নাম হচ্ছে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ফোর।

যে দিকগুলো থেকে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ফোর আইফোনের চেয়ে এগিয়ে, সেগুলো নিয়ে আলোচনা করা যাক।

১. স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ফোরে বিল্ট-ইন ইনফ্রারেড ব্লাস্টার রয়েছে, যা দিয়ে টেলিভিশনের ইউনিভার্সেল রিমোট হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।

 

২. এতে নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন (NFC) থাকায় একটি মোবাইল থেকে আরেকটি মোবাইলে NFC ব্যবহার করে কথা বলা যাবে এমনকি মোবাইলে বিল পরিষোধও করা যাবে।

 

৩. গ্যালাক্সি এস ফোরে অতিরিক্ত মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা যায় এবং এগুলো দামে সস্তা, আইফোনে এই সুবিধাটি নেই।

 

৪. এতে প্রতিস্থাপনের যোগ্য ব্যাটারি থাকায় যেকোন সময় ব্যাটারি পরিবর্তন করা যায়।

 

৫. এতে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও চালানো যায়, যা আইফোন বা অন্যান্য ফোনে এখন পর্যন্ত চালানো সম্ভব না।

 

৬. এতে ৫ ইঞ্চি দীর্ঘ ডিসপ্লে রয়েছে, যা আইফোন ৫ এর তুলনায় অনেক বড়।

 

৭. এই ফোনটির মাধ্যমে আপনি আপনার বন্ধুদের সাথে ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে গ্রুপ প্লে নামক অ্যাপসের মাধ্যমে গেমস খেলা, ফাইল অথবা ছবি ইত্যাদি শেয়ার করতে পারবেন।

 

৮. এই ফোনটির ক্যামেরাতে অনেক ট্রিকস রয়েছে, যেমন এই ফোনটির মাধ্যমে আপনি আপনার ছবি থেকে ঝাপসা আকার দূর করতে পারবেন।

 

৯. এই ফোনটির দিকে যখন আপনি তাকিয়ে থাকবেন তখন এটি জ্বলে থাকবে, অন্যথা এর ডিসপ্লে লাইট অফ থাকবে। অর্থাৎ এতে আই সেন্সর রয়েছে।

 

১০. এই ফোনটির ইউএসবি প্লাগ ব্যবহার করে একসাথে আপনি চার্জ এবং কম্পিউটারের সাথে যুক্ত করতে পারবেন। এই প্লাগগুলো বাজারে অনেক সহজেই পাওয়া যায়।

সুতরাং এখন দেখার পালা আদৌ গ্যালাক্সি এস ফোর অ্যাপলের সাথে কতটুকু প্রতদ্বন্ধীতা করতে পারে।

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে জানতে “এখানে ক্লিক করুণ” তুলে ধরুন  নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। ]]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *