• Sat. Oct ১৬, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

ইতালিতে কিভাবে দ্রুত ট্যুরিস্ট ভিসায় পরিবার নিয়ে আসবেন? কি কি লাগবে?

ByLesar

Apr 3, 2018

প্রিয় আমিওপারির সম্মানিত পাঠক বৃন্দ আশাকরি মহান সৃষ্টি কর্তার অশেষ রহমতে আপনারা সবাই ভালোই আছেন। বন্ধুরা আজকে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে আপনি ইতালির টুরিস্ট বা ভিজিট ভিসায় আবেদনের মাধ্যমে দ্রুত আপনার পরিবার ইতালি নিয়ে আসতে পারেন ? এবং কিভাবে কি করতে হয় ? কি কি ডকুমেন্টস লাগবে এবং এর জন্য দেশে কি কি প্রয়োজন? এবং ইতালি থেকে কি কি সংগ্রহ করতে হবে? ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আপনাদের কাছে কিছু প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরার চেস্তা করবো।

ইতালিতে ফ্যামিলি রি ইউনিওন ভিসায় দিন দিন অনেক কড়াকড়ি আইন করার কারনে অনেকের কাছেই তাদের পরিবারকে ইতালিতে নিয়ে আসা সম্ভম হয়ে উঠছেনা। আবার অনেকে নানা ঝামেলার মধ্য দিয়ে কাগজ পত্র বের করে দেশে ফাইল জমা কড়িয়েও দীর্ঘ দিন ধরে প্রতীক্ষার দিন গুনছেন ভিসা পাওয়ার আশায়। এবং আপনাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছে যারা ইতালিতে নানা ঝামেলা ও সমস্যা পেড়িয়ে অনেক কষ্টে সকল কাগজ পত্র প্রেফেৎতুড়ায় জমা করিয়েও মাসের পর মাস এমন কি বছর ধরেও অপেক্ষা করে নুল্লাওস্তা পাচ্ছেন না এবং সর্বোপরি অপেক্ষার প্রহর গুনতে গুনতে ধৈর্য হারা হয়ে গিয়েছেন? তারা চাইলে খুব সহজেই তাদের স্বামী/স্ত্রী, সন্তান অথবা বাবা/মা এমনকি ভাই/বোন ও শ্বশুর/শাশুড়ি কে ইতালির ট্যুরিস্ট ভিসায় আবেদনের মাধ্যমে খুব অল্প সময়ের মদ্ধেই আপনার কাছে ঘুরতে নিয়ে আসতে পারেন।

আর আমাদের জন্য একটি আনন্দেন বিষয় হোল যে, ইতালির সরকার ২০১৮ সাল থেকে ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদন ফর্ম অনলাইন ভিত্তিক করেছে মানে ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য আবেদন করার সময় যে ভিসা ফর্ম পুরন করতে হয়, সেই ভিসা ফর্ম বর্তমানে অনলাইন ভিত্তিক করে দিয়েছে, মানে পূর্বে আমরা এই ফর্ম হাতে পুরন করে জমা করাতাম, কিন্তু বর্তমানে এটা অনলাইন ভিত্তিক করা হয়েছে, অনলাইন করার ফলে ভিসা পাওয়ার মানও আগের তুলনায় অনেক পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে। কারন পূর্বে হাতে লিখা ফর্ম হওয়াতে দেশে দূতাবাসের সাথে মিলে কিছু দালাল চক্র নানা ধরনের অপকর্ম ও দুর্নীতি সাধন করতে পারলেও বর্তমানে এই ভিসা ফর্ম অনলাইন ভিত্তিক করার ফলে দেশে এই ধরনের দালাল দের আর কোন কিছু করার থাকছে না। কারন আপনি অনলাইন ফর্ম পুরন করার সাথে সাথে ইতালি ইম্মিগ্রেসন সিস্টেমের ডাটাবেজে সরাসরি আপনার আবেদন পত্র জমা পড়ছে এবং এতে করে বর্তমানে দেশে ইতালি দুতাবাসের সাথে মীলিত কেউ দুর্নীতি গ্রস্ত হয়ে, চাইলেও নিজের স্বার্থে আপনার আবেদন প্রত্যাখ্যান করতে পারবে না। কারন ২০১৮ সাল থেকে সরাসরি ইটালি থেকে প্রতিটি ট্যুরিস্ট ভিসার হিসাব রাখা হবে ও ভিসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আর আপনারা এই ট্যুরিস্ট ভিসা সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে চাইলে সরাসরি আমিওপারি টিম এঁর সাথে যোগাযোগ করে জেনে নিতে পারবেন।এবং নিন্মে আপনাদের কাছে ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য কিভাবে কি করতে হবে ইত্যাদি নিয়ে কিছু তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

তাহলে আসুন এবার জেনে নেই ইতালির ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদনের জন্য কিভাবে কি করতে হয়? বা কি কি ডকুমেন্টন্স প্রয়োজন?

ইতালির ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রঃ

– “সি” (C) টাইপ ভিসা ফরম ( সম্পূর্ণরুপে সম্পন্ন এবং আবেদনকারী কর্তৃক স্বাক্ষরিত ) আবেদনকারী ১৮ বছরের নিচে হলে ভিসা ফরম পিতা/মাতা স্বাক্ষর করবে এবং স্বাক্ষর প্রমানসরুপ পিতা / মাতার বাংলাদেশ সরকার অনুমদিত পরিচয় পত্র সহকারে আবেদনকালিন সময়ে উপস্থিত থাকতে হবে।

২- পাসপোর্ট কমপক্ষে ১৮০ দিন পর্যন্ত বৈধ এবং অন্তত উভয় দিকে ফাঁকা ১টি খালি পৃষ্ঠা থাকতে হবে সাথে ( সকল ভিসা পেজ এর কপি- যদি এর আগে অন্য কোন দেশের ভিসায় ভ্রমন করে থাকেন )।

৩- সম্প্রতিক সময়ে তোলা পাসপোর্ট সাইজ ও ধরনের দুই কপি রঙ্গিল ছবি। ( ৬ মাসের মধ্যে তোলা ছবি হতে হবে এবং ব্যাকগ্রাউন্ড অবশ্যই সাদা হতে হবে )

৪- চাকুরিজীবিদের জন্যঃ
ক) নিয়োগপত্র, খ) বেতন বিবৃতি / গত ছয় মাসের বেতন স্লিপ ( আসল + ফটোকপি )
ব্যবসায়িক/ নিয়োগকর্তাদের জন্যঃ
ক) আবেদনকারীর কোম্পানি রেজিস্ট্রেশন ডকুমেন্ট, খ) ইনকরপোরেশন সার্টিফিকেট, গ) মেমোরেনডাম অব আর্টিকেল এন্ড এসোসিয়েশন (শেয়ারহোল্ডারদের নামের তালিকা পাতা সাথে প্রথম দুই পাতা কপি এবং শেষ পাতার কপি) ঘ) স্থানীয় চেম্বার অব কমার্স সঙ্গে বৈধ সদস্যপদ সার্টিফিকেট, ঙ) ট্যাক্স/টিন নম্বর, চ) ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন নম্বর, ছ) ট্রেড লাইসেন্স ( মুল + ফটোকপি)।

৫- ব্যাংক স্টেটমেন্ত- গত ছয় মাসের সম্প্রতি তুলে আনতে হবে (ব্যক্তিগত ও কোম্পানির, আসল ও ফটোকপি), ক্রেডিট কার্ড স্টেটমেন্ট (যদি থাকে)।

৬- সঙ্গী অথবা পরিবারের সদস্যদের জন্য অতিরিক্ত ডকুমেন্টঃ
• স্বামী বা স্ত্রীর জন্য (বিয়ের সার্টিফিকেট) যেমন স্বামী তার স্ত্রী কে টুরিস্ট ভিসার জন্য আবেদন করলে এই সার্টিফিকেট লাগবে।
• শিশুদের ক্ষেত্রে ( জন্মের সার্টিফিকেট )।
• শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে ( আইডি কার্ড ফটোকপি সহ স্কুল থেকে আনুমোদন চিঠি)।
• পরিবারের কারো ক্ষেত্রে ফ্যামিলি সার্টিফিকেট (সার্টিফিকেটটি পরিবারের প্রধান এর নামে ইস্যু হবে এবং পরিবারের প্রধানসহ সকল সদস্যের নাম অন্তর্ভুক্ত করতে হবে)।
• শিশুদের মধ্যে কেউ যদি বাবা অথবা মা দুই জনের একজন ছাড়া শুধু বাবার সাথে অথবা মার সাথে ভ্রমন করে, সেই ক্ষেত্রে পিতা/মাতার অনাপত্তিপত্র প্রদান করতে হবে।

৭- অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়ঃ টুরিস্ট ভিসার জন্য “লেত্তেরা ডি ইনভিতো” (lettera di invito) invitation letter তথা আমন্ত্রনপত্র অনেক বড় ভুমিকা পালন করে, যেমন আপনি আপনার স্ত্রীর জন্য এই আমন্ত্রনপত্র পাঠাতে পারেন, যা আপনার স্ত্রীকে এই ভিসা পেতে অনেক বেশি কার্যকারী ভুমিকা পালন করে।তবে সেই সাথে সাথে আপনার ইতালিয়ান ব্যাংক একাউন্ত থেকে ৬ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট দেখাতে হবে(উল্লেক্ষ আপনার ইতালিতে ব্যাংক একাউন্ত না থাকলে ইতালির পোষ্টা-পে কার্ড থাকলেও সেই কার্ড এর মাধ্যমে গত ৬ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট বের করে নেওয়া যায়) এবং সে আপনার কাছে আসার পর তার ভ্রমন কালিন থাকা খাওয়ার খরচ বাবদ ইত্যাদি বিষয় আপনি বহন করবেন যদি সে ব্যর্থ হয়। সেই মর্মে আপনার ব্যাংকে ৬ থেকে ৭ হাজার ইউরো সমপরিমান টাকা জমা রাখতে হবে।

এবং এর সাথে সাথে “ফিডেইয়ুসসিওনে বাঙ্কারিয়া”( Fideiussione bancaria)Bank Guarantee ব্যাংক গ্যারান্টির এই ইনস্যুরেন্স করাতে হবে, যা ইতালিতে এক ধরনের ব্যাংক ইনস্যুরেন্স কোম্পানি রয়েছে যারা ২৫০, ৩০০ ইউরোর বিনিময়ে এই ধরনের বিমা গুলো করে থাকে, এই সকল বীমা করার মানে হচ্ছে, আপনার স্ত্রী ইতালিতে আসার পর আপনার যদি কোন প্রকার দুর্ঘটনা ঘটে ,তখন তার থাকা খাওয়ার খরচ বাবদ এই ইনস্যুরেন্স কোম্পানি থেকে তিন হাজার নয়সো পাঁচ ইউরো পর্যন্ত পরিশোধ করা হবে , যাকে ইতালিয়ান ভাষায় বলা হয় “ফিডেইয়ুসসিওনে বাঙ্কারিয়া”( Fideiussione bancaria)Bank Guarantee ব্যাংক গ্যারান্টি। আর দুক্ষের বিষয় হচ্ছে আমরা অনেকেই ভাষাগত সমস্যার জন্য এই কাজটি কোথা থেকে এবং কিভাবে কি করে এবং অল্পমূল্যে করানো যায়? সেই বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত। আর তাই আপনার জন্য রয়েছে আমিওপারি টিম, উল্লেখ্য আমিওপারির সাথে ইতালির সবচাইতে নামকরা এই ধরনের ইনস্যুরেন্স কোম্পানি এবং ব্যাংক এর সাথে মিলে কাজ করার চুক্তি রয়েছে। তাই আপনি ইতালির যেকোনো প্রান্তেই থাকেন না কেন এমন কি যাদের ইতালিতে কেউ নেই? তারাও বাংলাদেশ থেকে আমিওপারি টিম এর মাধ্যমে সর্বশ্রেষ্ঠ মূল্যে এই ধরনের ব্যাংক গ্যারান্টি সংক্রান্ত কাগজ পত্র সংগ্রহ করতে পাড়বেন। শুধু তাই নয় কিভাবে আমন্ত্রনপত্র তৈরি করতে হয়? কি কি লাগে ইত্যাদি সকল বিষয়ে আমিওপারি টিম এর কাছে সকল ধরনের সাহায্য পেতে পারেন।বিস্তারিত জানতে নিন্মে আমাদের টিম এর সাথে সরাসরি যোগাযোগ করার বিস্তারিত রয়েছে আপনাদের প্রয়োজনে যোগাযোগ করতে পারেন।

৮- ব্যাংক গ্যারান্টির সাথে সাথে তার স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারনে কমপক্ষে ৩০০০০ ইউরোর বিদেশে অবস্থানকালীন সময়ের জন্য মেডিকেল ইনস্যুরেন্স কভারেজ কাগজপত্র দেখাতে হবে, এর মানে আপনাকে দুই ধরনের বিমা করতে হবে

১- একটি হচ্ছে ব্যাংক গ্যারান্টি সংক্রান্ত বিমা, যা ইতালিয়ান দূতাবাসকে নিশ্চিত করছে যে, তার বিদেশ ভ্রমন কালিন থাকা খাওয়া সংক্রান্ত কোন সমস্যা হলে ব্যাংক এই বিষয়ে সাহায্য করবে এবং

২- মেডিকেল ইনস্যুরেন্স, যা উনার বিদেশে ভ্রমণ কালিন শারীরিক কোন সমস্যায় পড়লে ডাক্তার খরচ সহ মেডিসিন খরচ বহন করবে। আর এই মেডিকেল ইনস্যুরেন্স ও আমরা খুব অল্প মূল্যে আপনাদের করিয়ে দিতে পারবো।

৯- রিটার্ন এয়ার টিকেট বুকিং তথা টিকেট বুকিং পিএনআর নাম্বার এর (মূল ও ফটোকপি দিতে হবে), উল্লেখ্য এই বিষয়টিও নাম মাত্র মূল্যে আপনারা আমিওপারি টিম এর মাধ্যমে দুনিয়ার যেই প্রান্তেই থাকেন না কেন? অতি সহজেই করিয়ে নিতে পাড়বেন। বিস্তারিত জানতে নিন্মের ঠিকানায় অথবা নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

১০- ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে কমপক্ষে ৩০ ক্যালেন্ডার দিন প্রয়োজন হতে পারে। তবে বর্তমানে এর চাইতেও বেশি সময় নিয়ে থাকে দূতাবাস।
উক্ত বিষয়ে অথবা ইতালিয়ান যেকোনো ধরনের ভিসা সংক্রান্ত বিষয়ে বাংলাদেশ থেকে শুরু করে ইতালিতে আপনার যেকোনো বিষয়ে আমিওপারি টিম এর সাথে সরাসরি যোগাযোগ করে সমাধান নিয়ে নিতে পাড়বেন।আর একটি বিষয়, যেহেতু এই ধরনের তথ্য গুলো আমাদের সকলের জেনে রাখা দরকার, তাই আপনাদের সকলের কাছে অনুরোধ থাকবে এই লেখাটি বেশি বেশি করে আপনার ফেসবুক সহ বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্ক গুলোর মাধ্যমে শেয়ার করে পৌঁছে দেওয়ার জন্য। ধন্যবাদ।

আপনারা যারা ইতালিতে ট্যুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশ অথবা বিশ্বের যে কোন দেশ থেকে আবেদন করতে চান তারা উক্ত বিষয়ে যেকোনো ধরনের সাহায্য ও সহযোগিতার জন্য আমিওপারি টিম এর সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন।

আমাদের সাথে যোগাযোগের বিস্তারিতঃ স্ক্যাইপ- amiopari টেলঃ +৩৯ ০৬২৪৪০৫২১৭ মোবাইল +৩৯ ৩৩৮১৪০৮৯১৭ (IMO) মোবাইলঃ +৩৯ ৩২০০৪১২৫৪০ (IMO)
ইমেইলঃ  info@amiopari.com
ঠিকানাঃ Via Delle Albizzie-27, 00172 Rome (Centocelle), Italy.

উল্লেখ্য কিভাবে সহজে ইউরোপের সেঙ্গেন ভিসা করবেন?সেই বিষয়ে বিস্তারিত এখানে ক্লিক করে জেনে নিতে পাড়বেন।

আর যারা আপনাদের ফেসবুকে আমাদের সাইটের প্রতিটি লেখা পেতে চান তারা এখানে ক্লিক করে আমাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে গিয়ে লাইক দিয়ে রাখতে পারেন। তাহলে আমিওপারিতে প্রকাশিত প্রতিটি লেখা আপনার ফেসবুক নিউজ ফিডে পেয়ে যাবেন। ধন্যবাদ।

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

সম্পর্কিত আরো কিছু পোস্ট দেখতে পারেন...

Lesar

আমিওপারি নিয়ে আপনাদের সেবায় নিয়োজিত একজন সাধারণ মানুষ। যদি কোন বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে আমাকে ফেসবুকে পাবেন এই লিঙ্কে https://www.facebook.com/lesar.hm

১০ thoughts on “ইতালিতে কিভাবে দ্রুত ট্যুরিস্ট ভিসায় পরিবার নিয়ে আসবেন? কি কি লাগবে?”
  1. Ame Sangen visay jete chai. Ami BBA hon’s pass, First food o resturent kaj pare,Driving o pare .amay ke Italete jaoar jonno kuo halp korben.Bangladesh from Dhaka.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *