• u. Sep ১৬, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

প্রবাসে ইতালির বাংলাদেশীদের নিয়ে প্রতিবেদন।

ByJahangir Alam Sikder

May 14, 2014

জাহাঙ্গীর আলম সিকদারঃ আমরা আমাদের দেশকে ভালবাসি এটা চিরন্তন সত্য । মা , মাটি , দেশ পৃথিবীর যেখানেই যাই , সময়ের সাক্ষী কখনই ঋণ শোধ করা যাবে না, এ যেন জন্ম থেকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করা পর্যন্ত অঙ্গিকারবদ্ধ আমার যা মনে হয়। যদিও বঙ্গবন্ধু তার আত্ম জীবনীতে লিখে গেছেন বাঙ্গালীদের পরশ্রীকাতরতা ও বিশ্বাস ঘাতকতা যেন রক্তের সাথে মিশে গেছে । জানি না কত টুকু ভারাক্রান্ত হৃদয়ের এ লেখা। তবে বোধ করি ১৭৫৭ সালে পলাশীর আম্র কানন থেকেই ঘৃণার এবং এর ব্যাপকতা সারা দুনিয়ার মানুষের মাঝে অজানা নেই। কারন তার প্রধান সেনাপতি মিস্টার জাফর আলী খান তার পাহারাদার হিসাবে পাশেই চেয়ারে বসতেন তেতুল টকের মতই ক্ষমতার জৌলুশ অথবা ক্ষমতার লেলিহান শিখা কিংবা আগ্নেয়গিরির অগ্নিতপাতের মত হৃদয়ের গলিত লাভা মসনদে ছড়ান, কিন্তু প্রায় ২০০ বছর সূর্য দেখেনি গোটা উপমহাদেশ ব্রিটিশ বেণিয়াদের কাছ থেকে।

তাইত মিস্টার জাফর থেকে উপাধি পেলেন মির জাফর । ক্ষমতার চেয়ার শত্রু আর বন্ধু যেন এপিঠ ওপিঠ। এই মির জাফররা মরেও কখনো মরে না বেঁচে থাকে তাদের কৃত্তি কর্মের জন্য যুগে যুগে কারণ তাদের চিন্তা চেতনায় রেখে যান অগণিত শীর্ষ। যুগে যুগে আবির্ভাব হয় আভ্যন্তরীণ এই বাংলায়। মুসলিম সাম্রাজ্যের সেই ন্যাককারজনক ঘটনা ছাড়াও লোভনীয় চেয়ারের ঘটনাও যুগে যুগে তথ্য উপাত্ত ভিত্তিতে কম ছিল কিসে ? ঘসেটি বেগমরাও সুযোগ কম খুঁজেননি মির জাফরদের সহ ধর্মিণী হয়ে প্রানের বাংলায়। তাইত রক্তের শিরা উপশিরায় মিশে আছে আমাদের সেই মিছিলের মত কলসিত চরিত্র ফুলের মত পবিত্র। মোহ আমাদের কে পিছিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এতে কার কি আসে যায় কিন্তু এটা কয় জনে ভাবে যে অনুস্মরণ কারীরা বেঁচে থাকতে প্রথম নয় ,২য় কিংবা সহকারী মানায়।

তাইতো বোলজানোতে পিটারপান স্কুলের পাশে পাথরের উপর বসলাম এবং পাথরের উপর হাত রেখে জিজ্ঞেস করলাম তুমি এত শক্ত কেন ? উত্তরে মনে হচ্ছে পাথর নিজেই বলছে মানুষের চেয়ে বেশী শক্ত না ! কিন্তু আমাকে মনে হচ্ছে ও আমার প্রশ্নের উত্তরে আমার দেশের মানুষের কথা বলছে। কারন আমি বারাক ওবামা কিংবা বেলাপুতিনের কথা বলছিনা কিংবা মুদির গরগর করে বেরিয়ে আসা ভয়ঙ্কর জঙ্গিবাদের মত ভাষণ অথবা কথায় সুযোগ খোঁজা মমতা ব্যানার্জির ডায়ালগ ও ভাবছি না ৷ আমি আমার দেশের দেশাত্মবোধ মানুষের কথা বলছি কারো আলোচনা কিংবা সমালোচনা থাকতেই পারে, ভোট আমার কমবে কমতেই পারে তবুও আমার মস্তিষ্কের বিকাশের ঔষধ যদি কারো মেজাজ ফুরফুরে হয়ে কমিউনিটির একাত্মতা ঘোষণার কোনো কাজে আসে , যদি আমার মাতৃভূমির জনগণের কোন কাজে আসে তবে সকল দায়ভার আমাকেই মেনে নিয়ে কৃতজ্ঞতা বোধ করবো আমাদের এই কমিউনিটির স্বার্থে।

আসলেই তো তাই কেননা জীবনের এক তৃতীয়াংশ পার হয়ে গেলো প্রবাসের এই বোলজানোতে বাংলাদেশী কমিউনিটির সাথে মিশে। সময়ের বাস্তবতা আমাকে কুঁকড়ে খাচ্ছে পিছনে পরে থাকা নিল নকশার চক্রবাদিদের সামান্য টুকু স্বার্থের প্রয়োজনে। ক্ষুদ্র স্বার্থের কাছে বৃহত্তর স্বার্থ কে বিক্রি করার মত গুম গুম আওয়াজ। যতোটুকুই কমিউনিটিকে কাছে পেয়েছি সেই ২০০০ সাল থেকে কিন্তু কেন আমরা এই ফর্মুলা থেকে বেরিয়ে আসতে পারি না।

১- তোরা যে যা বলিস ভাই আমার সোনার হরিণ চাই

২- এই কমিউনিটিতে না থাকলে আমার আসে যায় না ।

৩- মোল্লার দৌড় মসজিদ পর্যন্ত ।

৪- আমি আছি আপনাদের সাথে ।

৫- যখন ডাকবেন আমি হাজির ।

৬- এটা করা কোন ব্যাপারই না ।

তাই শুরুর গড়ে উঠাকে ধ্বংস থেকে রেহাই পেতে হলে অতীতের অভিজ্ঞতা স্মরণ করতে হবে।

১- গণতন্ত্রকে বাদ দিয়ে এক নায়কতন্ত্র কায়েম করার মনোভাব বাদ দিতে হবে। কারণ আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাসী তাই শ্রদ্ধা করতে হবে গণতন্ত্রকেই।

২- আভীজাততের অহংকার কিংবা COMMOND কথায় কথায় এমন ভাব থেকে সরে আসতে হবে।

৩- বসন্তের কোকিলের মত ডাক দেওয়া বা ডাক শুনা থেকে বিরত থাকতে হবে।

৪- সবার মন জয় করা এমন ভাবনা ব্যক্তিত্ত হীনতার শামিল (মার্ক টুইন )।

৫- গাধাকে যদি স্বর্ণ দারাও আচ্ছাদিত কর গাধাই থেকে যায় (জন মরলে )।

কারন সেখানে শিক্ষিত মানুষের চেয়ে শিক্ষিত বিবেকের অভাব। তাইত নতুন প্রজন্মকে হাল ধরতে হয়েছে কিছু কিছু ক্ষেত্রে। আর ধরবেনা কেন? সম্রাট নেপলিয়ান যদি ১৩ বছর বয়সে দেশ চালাতে পারে একটি কমিউনিটির ক্ষেত্রে তা খুবই নগণ্য। এরাই মুকুটধারী , হয়তবা শিখারও থাকতে পারে। অতীত , বর্তমান প্রজন্ম থেকে পরবর্তী প্রজন্মের কাছেও। তাই ফেলে আসা জাতির কথা মনে করে বর্তমান প্রজন্মের ধারক ও বাহকদের জ্ঞাতার্থে বীবেকবাণ মানুষের এই বিবেককে যদি আশানুরূপ ফলপ্রসূ না হয়। কি জবাব থাকবে কমিউনিটির দরবারে ? অতএব মুক্ত চিন্তার বিবেকবান মানুষ আজ বড়ই প্রয়োজন। জ্ঞান দেওয়ার কথা নয় চিরন্তন সত্য। তাই আসুন প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ সবাই সবার অগ্রগতি ও জাতিয় স্বার্থে একে অপরের প্রতি কাজে ও কথায় সহযোগিতায় প্রতিশ্রুতি বদ্ধ হওয়ার চেষ্টা করি। ধরি মাছ না ছুঁই পানি। নুন আন্তে পান্তা ফুরায়। নিজে বাঁচলে বাপের নাম এসব না বলে একতার স্বার্থে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে তবেই সার্থক জাতি ও জাতির মানুষের জন্য। কেনোনা সবুজ পাসপোর্ট আমাকে, আমাদেরকে ঋণী করে রেখেছে এই ছোট দুনিয়ার যেখানেই যাই না কেন ¬।

[[ আপনি জানেন কি? আমিওপারি ওয়েব সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা প্রকাশ করার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে এই লেখায় ক্লিক করে জানুন এবং  তুলে ধরুন। নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। আর আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে রয়েছে অনেক মজার মজার সব ভিডিও সহ আরো অনেক মজার মজার টিপস তাই এগুলো থেকেবঞ্চিত হতে না চাইলে এক্ষনি আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে লাইক দিয়ে আসুন এখানে ক্লিক করে। এবং আপনি এখন থেকে প্রবাস জীবনে আমাদের সাইটের মাধ্যমে আপনার যেকোনো বেক্তিগত জিনিসের ক্রয়/বিক্রয় সহ সকল ধরনের বিজ্ঞাপন ফ্রিতে দিতে পাড়বেন বিস্তারিতু জানতে এখানে ক্লিক করুণ। ]]

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

Jahangir Alam Sikder

আমার সম্পর্কে তেমন কিছুই বলার নেই। আমি একজন অতি সাধারণ মানুষ। প্রায় ১ যুগ ধরে ইতালির বোলজানো শহরে বসবাস করছি। আর বোলজানোর প্রবাসী বাঙ্গালী কমিউনিটির বিভিন্ন কাজকর্ম গুলো লেখা লেখির মাধ্যমে সবার কাছে তুলে ধরাই আমার প্রধান লক্ষ্য। আমার সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে আমার ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারে। My Website: www.jahangirsikder.com

One thought on “প্রবাসে ইতালির বাংলাদেশীদের নিয়ে প্রতিবেদন।”
  1. salam vai ..Italy ta ki robindroat thakur \sorotcondror kono voi French /Italy an language e asa kina thakla kew amake plz janan [Tobe voi gulu hote hobe amder lifestayl /culture somporke ]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *