সুইজারল্যান্ডের জেনেভা থেকে!! যা দেখলাম, আশ্চর্য হলাম- মনে মনে প্রার্থণা করলাম, আর যেন দেখতে না হয়

সুইজারল্যান্ডের জেনেভা থেকে রফিকুল ইসলাম আকাশঃ রূদ্র আর আন্না, আমার বন্ধু চেক প্রজাতন্ত্রের । প্রাগ ভিজিট করতে গিয়ে দেখলাম অনেক কিছু, মোটামুটি ভালই লাগল । রূদ্র প্রশ্ন করল আমাকে, কি কি দেখলে আমাদের দেশে? যা দেখেছি তার ফিরিস্তি দিলাম । মৃদু হেসে বলল, নতুনত্ব কিছুই পাওনি, তাইনা ? চলো, তোমাকে সত্তর হাজার লাশ দেখাব । আঁতকে উঠলাম, বলো কি? [sociallocker id=”13828″]

বললাম গুগল ট্রানস্লেট করে তোমার সাথে কথা বলে মজা পাইনা । বলল, চলো আমার বন্ধু কারোলিন কে সাথে নিচ্ছি , ও ভাল ইংরেজি জানে এমনকি ইটালিয়ান ও। ”সেডলেক ওসারি বা কঙ্কালের গির্জা” একটি ছোট রোমান ক্যাথোলিক গির্জা যা চেক প্রজাতন্ত্রের সেডলেকে অবস্থিত। গির্জাটি মৃত মানুষের কঙ্কাল দিয়ে সাজানো। এখানে প্রায় ৭০,০০০ মানুষের কঙ্কাল দিয়ে শৈল্পীকভাবে সাজানো হয়েছে গির্জাটি। এই গির্জাটি চেক প্রজাতন্ত্রের অন্যতম পর্যটকদের আকর্ষনীয় স্থান। প্রতি বছর প্রায় ২০০,০০০ পর্যটক গির্জাটি দেখতে আসেন। গির্জাটির অন্যতম আকর্ষন হলো এর কেন্দ্রে একটি বড় কঙ্কালের ঝাড়বাতি। আরো একটি আকর্ষনীয় কাজ হলো সোয়ারজেনবার্গের পরিবারের এর কুলচিহ্ন। এটিও কঙ্কাল দিয়ে নির্মীত। সংক্ষিপ্ত ইতিহাস – ১২৭৮ সালে বোহেমিয়ার দ্বিতীয় রাজা আটাকোরা হেনরি নামে একজন মঠাধ্যক্ষকে জেরুজালেম পাঠান। তিনি সেখান থেকে ফিরে আসার সময় গলগোথার কিছু মাটি সঙ্গে করে নিয়ে এসে মঠের গোরস্তানের চারপাশে ছড়িয়ে দেন। এই খবর যখন লোকজন জেনে যায় তখন পুণ্য লাভের জন্য সবাই মরে যাওয়ার পর এখানে সমাহিত হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করে এবং কিছুদিনের মধ্যেই ইউরোপজুড়ে সেলডেক হয়ে ওঠে একটি আকাংখিত সমাধিক্ষেত্র। ১৪ শতাব্দীতে ব্ল্যাক ডেথের সময় এবং ১৫ শতাব্দীর প্রথম দিকে হাজাইট যুদ্ধের সময় হাজার হাজার লোককে এখানে সমাহিত করা হয়। ১৪০০ সালের দিকে এই গির্জার ভিতরে একটি গোথিক গির্জা নির্মান করা হয় যেখানে অনেক লোককে সমাহিত করা হয়। তাই এটির পরিধি অত্যন্ত বেড়ে যায়। ১৭০৩ থেকে ১৭১০ সালের এর মধ্যে, একটি নতুন প্রবেশদ্বার তৈরি করা হয় যা সামনের প্রাচীরের বাহ্যিক সাপোর্ট হিসেবে কাজ করে। উপরের চার্চটি পুনঃনির্মিত হয়। চেক বারোক স্টাইলে এই চার্চের স্থপতি ও ডিজাইনার ছিলেন জ্যান সান্তিনি আইচেল। ১৮৭০ সালে ফ্রান্তি অ্যাক রিন্ত একজন কাঠমিস্ত্রি যিনি এই হাড়গুলো সাজিয়ে রাখার দায়িত্ব পান। রূদ্র আসলে সত্তর হাজার কংকাল বোঝাতে গিয়ে, আমাকে সত্তর হাজার লাশ বুঝিয়েছিলো । যা দেখলাম, আশ্চর্য হলাম- মনে মনে প্রার্থণা করলাম, আর যেন দেখতে না হয় … … … 

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে এই লেখায় ক্লিক করে জানুন এবং  তুলে ধরুন। নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। আর আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে রয়েছে অনেক মজার মজার সব ভিডিও সহ আরো অনেক মজার মজার টিপস তাই এগুলো থেকে বঞ্চিত হতে না চাইলে এক্ষনি আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে লাইক দিয়ে আসুন। এবং আপনি এখন থেকে প্রবাস জীবনে আমাদের সাইটের মাধ্যমে আপনার যেকোনো বেক্তিগত জিনিসের ক্রয়/বিক্রয় সহ সকল ধরনের বিজ্ঞাপন ফ্রিতে দিতে পাড়বেন। ]] [/sociallocker]

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

View all contributions by

Subscribe To Our Newsletter

আপনার পক্ষে কি প্রতিদিন আমাদের সাইটে আসা সম্ভব হয় না? তাহলে আপনি আমাদের ইমেইল নিউজলেটার সাবসক্রাইব করতে পারেন। এর মাধ্যমে আমাদের নতুন কোনো পোষ্ট করলে আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার সন্ধান পেয়ে যাবেন আপনার নিজের ইমেইলের ইনবক্সে।

{ 0 comments… add one }

Leave a Comment

alexa toolbar

Get our toolbar!

সর্ব কালের ৮ জন সেরা লেখক

    সর্বাধিক পঠিত

    Popular Posts

    আমাদের সম্পর্কে | যোগাযোগ | সাইট ম্যাপ

    কপিরাইট ©২০১১-২০২০ । আমিওপারি ডট কম

    পূর্ব অনুমতি ব্যতিরেকে কোনো লেখা বা মন্তব্য আংশিক বা পূর্ণভাবে অন্য কোন ওয়েবসাইট বা মিডিয়াতে প্রকাশ করা যাবে না।

    ডিজাইন এবং ডেভেলপঃ

    Amiopari.com