• Sun. Jul ২৫, ২০২১

আমিওপারি ডট কম

ইতালি,ইউরোপের ভিসা,ইম্মিগ্রেসন,স্টুডেন্ট ভিসা,ইউরোপে উচ্চ শিক্ষা

ইতালির বোলজানো বাসীর ১লা মে উৎযাপন ও ১লা মে নিয়ে কিছু কথা।

ByJahangir Alam Sikder

May 1, 2014

জাহাঙ্গীর আলম সিকদার,ইতালির বোলজানো থেকেঃ  আজ ১লা মে দিবস । জাঁক জমক ভাবে আলোয় আলোকিত হল উল্লাসে ভরা দিন, কারণ দিনটি শ্রমিকের, খেটে খাওয়া দিন মজুরের, তাই দিনটি সস্থির ও আনন্দের । প্রবাসে ইতালির বোলজানো থেকে অনুভব করতেছি , পড়তেছি পেপার পত্রিকা, দেখতেছি টিভির পর্দায়, জানতেছি প্রতি বছরের মত মে মাসের এই দিন এলেই ফিরে যাই অনুভুতিতে আমেরিকার ছিকাগু শহরের হে মারকেটে যেন ১৮৮৬ সালের এই দিনে । শ্রদ্ধা জানাচ্ছি ইতিহাস গাঁথা এই দিনে, যারা প্রান দিয়ে রক্ত চোষা মালিকদের থেকে ছিনিয়ে এনেছেন সারা দিনে ৮ ঘণ্টার প্রতিষ্ঠার ধারাবাহিকতা। এনেছে মুক্তি দাসত্তের শৃঙ্খলা থেকে ।

১৮৮৬ সালের ১লা মে ছিল আমেরিকার ছিকাগু শহরে। মার্চ,এপ্রিল দুই মাসের আল্টিমেটাম ছিল রক্ত চোষা মালিকদের বিরুদ্ধে স্রমিকদের দিনে ৮ ঘণ্টা কাজের দাবী আদায়ের, কিন্ত দাবী না মানাতে হাজার হাজার স্রমিক এসে বিক্ষোভে ফেটে পরেন সেদিন ছিকাগু শহরে ,মানলনা সে সময়ের দাবী আমেরিকার পুঁজিবাদী গনতন্ত্র । স্রমিকের দাবী ধূলিসাৎ করে শ্রেণী বিন্যাস শুধু ২ টি ধারায় বলবত রাখতে চেয়েছিল যা কিনা গরিব গরিবই থেকে যাবে আর বড় তাদের কত্রিত্তের বড়াই যা কিনা ধনবানের বংশগত ধারার মত থেকে যাবে । কিন্ত বিধি বাম তাই পলিশ স্রমিক সমুদ্রে অতর্কিত হামলা চালালে ১লা মে ৬ জন মারা যায় , এবং পরে ৪ জন স্রমিক মারা যান । ওরা মরেছে কিন্ত সারা পৃথিবীর মানুষ ওদের আত্মাকে স্মারক হিসেবে ধরে রেখেছে ১লা মে স্রমিক দিবস । ১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসে অনুষ্ঠিত ২য় আন্তর্জাতিক স্রমিক সম্মেলনে ওই ঘটনার স্মারক হিসেবে ,এবং পহেলা মে আন্তর্জাতিক স্রমিক সংহতি দিবস হিসেবে পালিত হয় । শ্রেণী বৈষম্য ধরে রাখতে পারেনি রক্ত চোষা মালিক শ্রেণী । মেনে নিতে বাধ্য হয়েছিল ধনবান মালিকরা, সামন্তবাদি বুর্জুয়া বাহিনী স্বীকার করল স্রমিকদের আত্ম ত্যাগের বিনিময়ে , শ্রমিকরাও মানুষ । অত্যন্ত দুঃখের বিষয় আমেরিকার শিকাগো শহরের হে মার্কেটের ঘটনা ভুলেনি সারা দুনিয়ার শ্রমিক, মেহনতি মানুষের মাথার ঘাম পায়ে ফেলার সৃতি সেই ১৮৬২ সালের সুরু তা ১৮৮৬ সালের ১লা মে মাসে স্তব্ধ করে দিলেও ভুলতে বসেছে খোদ আমেরিকানরাই, ভুলেনি বাংলাদেশের মত গরিব দেশ গুলু ,আনন্দ উল্লাস করেছে সেদিনের সে সৃতি ঘিরে বন্ধ করে রেখেছে কারখানা,অফিস, আদালত গরিব দেশের এই জনগন আর জনগনের সরকার । তাই জয় আমাদের মত খেঁটে খাওয়া মাথার ঘাম পায়ে ফেলা শ্রমজীবী মানুষের । নিপাত যাক সামন্তবাদি বুর্জুয়া শ্রেণী আর পেটুক বাহিনীর ।

My Website: www.jahangirsikder.weebly.com

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

Jahangir Alam Sikder

আমার সম্পর্কে তেমন কিছুই বলার নেই। আমি একজন অতি সাধারণ মানুষ। প্রায় ১ যুগ ধরে ইতালির বোলজানো শহরে বসবাস করছি। আর বোলজানোর প্রবাসী বাঙ্গালী কমিউনিটির বিভিন্ন কাজকর্ম গুলো লেখা লেখির মাধ্যমে সবার কাছে তুলে ধরাই আমার প্রধান লক্ষ্য। আমার সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে আমার ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারে। My Website: www.jahangirsikder.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *