আবার বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি নেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই)

বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি নেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই)। তবে এক্ষেত্রে বেশ সাবধানী হয়ে উঠেছে দেশটি।শ্রমিক নেওয়ার ক্ষেত্রে তাদের বর্তমান ও আগের সব তথ্য জানতে চায় তারা। পাশাপাশি দক্ষশ্রমিকও চায় দেশটি।আর শ্রমিকদের সব তথ্য পেতে বাংলাদেশের সঙ্গে শ্রমিক নিরাপত্তা বিষয়ক একটি চুক্তি সইয়ে আগ্রহী সংযুক্ত আরব আমিরাত। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে বিনিয়োগ আকর্ষণ করা এবং জনশক্তি শ্রমিক রফতানিসহ দ্বিপাক্ষিক অন্যান্য বিষয়ের ওপর এক আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল হক।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়, আইন মন্ত্রণালয়, শিল্প মন্ত্রণালয়, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সংশ্লিষ্টরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।বৈঠকে ২০২০ সালে ওয়ার্ল্ড এক্সপো-২০২০-কে লক্ষ্যমাত্রা ধরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে জনশক্তি রফতানির কৌশল তৈরি করছে বাংলাদেশ।বছরে কমপক্ষে ৫০ হাজার শ্রমিক পাঠানোর লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে নতুন শ্রমিকদের দক্ষ বা আধাদক্ষ করে তোলার পাশাপাশি সংযুক্ত আরব-আমিরাতের আইন-কানুন ও সামাজিক অবস্থার ওপর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থার সুপারিশ করা হয়।

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রায় ১০ লাখের মতো বাংলাদেশি অভিবাসী রয়েছেন। কিন্তু, তাদের মধ্যে অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় ভাবমূর্তি সংকটে পড়ে বাংলাদেশ।এক পর্যায়ে বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি আমদানি বন্ধ করে দেয় আরব-আমিরাত। কিন্তু, কুটনৈতিক তৎপরতায় দেশটি ভবিষ্যতে বেশি সংখ্যক বাংলাদেশি শ্রমিক নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে। তবে বাংলাদেশকে এ বিষয়ে নিরাপত্তা বিষয়ক চুক্তিতে সই করতে হবে। ভারত ও পাকিস্তানের সঙ্গে আরব আমিরাতের এ ধরনের একটি চুক্তি আছে।এ বিষয়ে বৈঠকে অংশ নেওয়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, সংযুক্ত আরব-আমিরাতে বাংলাদেশের জন্য অন্যতম বৃহৎ বাজার। কিন্তু, বাংলাদেশিরা অপরাধে জড়িয়ে পড়ায় ২০০৭ সাল থেকে ২০১১ পর্যন্ত গড়ে প্রতিমাসে ৩০ হাজার করে শ্রমিক রফতানি হলেও শ্রম-বাজারটি বন্ধ হওয়ায় পথে।

বাজারটি উন্মুক্ত করতে দেশটির সঙ্গে নিরাপত্তা বিষয়ক একটি চুক্তি করা বাঞ্ছণীয়। এতে করে তারা শ্রমিকদের বর্তমান ও আগের তথ্যগুলো জানতে পারবে।তিনি বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশ থেকে প্রশিক্ষিত ও দক্ষশ্রমিক নিতে আগ্রহী। আর এ জন্যই জনশক্তি রফতানিতে শ্রমিকদের তথ্য যাচাইয়ে একটি সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়া তৈরি করতে হবে। যদিও এতে করে শ্রমিকদের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

View all contributions by

Subscribe To Our Newsletter

আপনার পক্ষে কি প্রতিদিন আমাদের সাইটে আসা সম্ভব হয় না? তাহলে আপনি আমাদের ইমেইল নিউজলেটার সাবসক্রাইব করতে পারেন। এর মাধ্যমে আমাদের নতুন কোনো পোষ্ট করলে আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার সন্ধান পেয়ে যাবেন আপনার নিজের ইমেইলের ইনবক্সে।

{ 0 comments… add one }

Leave a Comment

alexa toolbar

Get our toolbar!

সর্ব কালের ৮ জন সেরা লেখক

    সর্বাধিক পঠিত

    Popular Posts

    আমাদের সম্পর্কে | যোগাযোগ | সাইট ম্যাপ

    কপিরাইট ©২০১১-২০২০ । আমিওপারি ডট কম

    পূর্ব অনুমতি ব্যতিরেকে কোনো লেখা বা মন্তব্য আংশিক বা পূর্ণভাবে অন্য কোন ওয়েবসাইট বা মিডিয়াতে প্রকাশ করা যাবে না।

    ডিজাইন এবং ডেভেলপঃ

    Amiopari.com