আমাকে ভিক্ষা দিন, আমাকে সুন্দর একটা বাংলাদেশ ভিক্ষা দিন

নিচে লেখা ঘটনাটি আজ থেকে প্যরায় আড়াই বছর আগের। কেন যেন মনে হলো সবার সাথে শেয়ার করি। আমার জীবনের ঘটে যাওয়া এরকম অনেক লেখা আছে, যা আমি আমার ছোট ল্যাপটপে লিখে রাখি। আজ থেকে আমিও পারি amiopari.com ওয়েবসাইটে আমার জীবনের সব অভিজ্ঞতা শেয়ার করব। আসা করি প্রবাস জীবনে আপনাদের ভালো লাগবে আর আপনাদের কতটুকু ভালো লাগলো দয়া করে মন্তব্যের মাধ্যমে আমাকে জানাবেন। তাহলে আমি আরো বেসি উত্সাহিত হব।

ঢাকা শহরের কিছু ভিক্ষুক আছে যারা নিজেদের ভিক্ষা করার সুবিধার্থে নিজেই ইচ্ছা করে শরীরের একটা অংশ কেটে ঘা করে রাখে তারপর ধীরে ধীরে যখন ঘা শুকাতে শুরু করে আবার খুচিয়ে ওই ঘা আগের অবস্থাতে নিয়ে যায় । চিন্তা করেছেন মানুষের কি অদ্ভুত পেশা ! আমি প্রায় এক বছর ধরে কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবরের সামনে এক মহিলাকে দেখি সন্ধ্যার পর , “আব্বা আমি অপারেশনের রুগী ,আমারে ২ টা ট্যাকা দিয়া যাও” এই একটি বাক্য তিনি ১ বছর থেকে বলে যাচ্ছেন । তার পাশ দিয়ে কেউ গেলেই তিনি অত্যন্ত করুন কান্নাজড়া কণ্ঠে এই বাক্য উচ্চারন করেন । কেউ কেউ হয়তো বিশ্বাস করে কিছু দেনও ।

ফার্মগেটে যখন প্রথম আসি তখন একদিন রাতে ভুত দেখার মতো চমকে গিয়েছিলাম । রাত ১১ টার দিকে ফুট ওভার ব্রিজ থেকে নামছি , লোকজন কমে গেছে । নেমে হাটা শুরু করেছি হঠাৎ সামনে দেখি একটা হাত পা বিহীন ধড় পড়ে আছে রাস্তার পাশে । কোন নড়াচড়া নেই । রাতের বেলা এমন বিভৎস দৃশ্য আমি এর আগে কখনো দেখিনি । কিছুক্ষণের জন্য স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিলাম । এবং একপ্রকার তাড়াহুড়া করে চলে এসছিলাম । তাঁর কয়দিন পর একদিন দিনের বেলা আবিস্কার করি ওই ধড়টি একটি জীবন্ত মানুষ । এবং সে ওভাবে ভিক্ষা করে । আরেকটা বেটে শুকনা করে লোক বেড়ায় এখানে ওখানে । তারা গোটা শরীর পুড়ে গিয়ে এমন বিভৎস হয়ে গিয়েছে যেটা রাতে দুর্বল চিত্তের কেউ দেখলে অজ্ঞান হয়ে যেতে পারে । 

যতই রাতে চলাফেরা করছি এদের মখোমুখি হচ্ছই প্রচুর । এক মহিলা একদিন রাতে হঠাৎ ডাক দিলেন । ভদ্র পোশাক আশাক ,মনে হলো ভালো ফ্যামিলির কেউ । কাছে গেলাম । বললেন , “বাবা আমার বাসা নারায়ণগঞ্জ । ঢাকা আসছিলাম । রাস্তায় ছিনতাইকারী সব নিয়ে গেছে । বাসা যাওয়া ভাড়া নাই । সাথে আমার বাচ্চাটা সারাদিন কিছু খায় নি । বাবা আমি ভালো ফ্যামিলির মানুষ । এখন কি করি ? বাবা প্লিজ কিছু টাকা দিলে অন্তত খেতে পারতাম আর বাড়ি যেতে পারতাম” ।, কেন জানিনা আমার মায়া হলো , পকেটে দু শ টাকা ছিল । বের করে দিলাম । আমি চলে এলাম । নিজে খুব ভালো অনুভব করলাম । সত্যি করে বলছি কাউকে সাহায্য করার মতো আনন্দ অন্য কোনো খানে নেই ।

তাঁর কিছুদিন পর আমি অবাক হয়ে লক্ষ্য করলাম ওই মহিলা বসুন্ধরা শপিং কমপ্লেক্সের সামনে ঠিক একই ভাবে এনাকে উনাকে ডাকছে । আমি উনার কাছে গেলাম । জানিনা উনি আমাকে চিনতে পেরেছেন কিনা ,কিন্তু না চেনার ভাব করলেন । আমি বললাম, আন্টি মিথ্যা বলে এরকম টাকা আয় করছেন কেন ? উনি এমন একটা ভাব করলেন যেন আমার কথা শুন্তেই পান নি । আমি আর কিছু বললাম না , এদের মান সন্মান নেই । এদের সাথে কথা না বারানোই শ্রেয় । 

রাস্তায় হাটতে হাটতে মাঝে মাঝে ভাবি ঠিক এই লোক গুলোর কারনে হয়তো একদিন একজন সত্য বিপদে পড়া মহিলা চরম দুর্বিষহ অবস্থায় পড়বেন।কারন এরা এভাবেই মানুষের বিশ্বাস ভাঙ্গে । যখন ক্যাম্পাসে হাটি ,ছোট ছোট ছেলেরা চকলেট নিয়ে আসে । ওঁগুলো কিনে নেই মাঝেমাঝে । হয়তো আশেপাশে তাদের মা আছে , দেখছে সবকিছু । সত্যিকারের কিছু মানুষ আছে যাদের কথা ভাবলে তবুও মায়া এসে যায় । কিন্তু ছলচাতুরীর এই যুগে তারা খুব কষ্টে থাকে ।কারন তারা পরিকল্পনা মত কিছু করতে পারে না ,পরিকল্পনা বিহীন ভিক্ষায় মায়া ফুটে উঠে না । বাসে কিছু মেয়ে চকলেট নিয়ে আসে , কেউ কিনে কেউ কিনে না । কিছু লোক ভিক্ষাও ঠিক মত করতে পারে না, তারা পরাজিত । নিজেকে শেষ বলে ধরে নেয় । কত লোক এভাবে রাস্তার ধারে খাবারের ওভাবে ধুঁকে ধুঁকে মারা যায়…

আমি দেশের গুনি এবং গুরুজনদের কাছে ভিক্ষা চাই, হ্যা আমি সুন্দর একটা সোনার বাংলাদেশ ভিক্ষা চাই।

[[ আপনি জানেন কি? আমাদের সাইটে আপনিও পারবেন আপনার নিজের লেখা জমা দেওয়ার মাধ্যমে আপনার বা আপনার এলাকার খবর তুলে ধরতে এই লেখায় ক্লিক করে জানুন এবং  তুলে ধরুন। নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। আর আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে রয়েছে অনেক মজার মজার সব ভিডিও সহ আরো অনেক মজার মজার টিপস তাই এগুলো থেকে বঞ্চিত হতে না চাইলে এক্ষনি আমাদের ফেসবুক ফ্যানপেজে লাইক দিয়ে আসুন। এবং আপনি এখন থেকে প্রবাস জীবনে আমাদের সাইটের মাধ্যমে আপনার যেকোনো বেক্তিগত জিনিসের ক্রয়/বিক্রয় সহ সকল ধরনের বিজ্ঞাপন ফ্রিতে দিতে পাড়বেন। ]]

*****লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুণ!*****

View all contributions by

আমি অতি সাধারণ মানুষ। ভালবাসি পড়তে এবং লিখতে। প্রবাস জীবনের ব্যস্ততার মাঝেও আমি সময় করে বিভিন্ন পত্রিকা পরি এবং কিছু লেখার চেষ্টা করি। আরণ্যক নাট্যদলের সদস্য ছিলাম ২ বছর। প্রথম আলোর বন্ধু সভার ১৮৯ তম সদস্য।প্রযুক্তিকে অনেক ভালবাসি। জীবিকার তাগিদে এখন প্রবাস জীবন গ্রহণ করেছি। নিজে ভালো থাকি এবং পাসের মানুষটাকে ভালো রাখার চেষ্টা করি। আমার বর্তমান পরিচয় আমি ইতালির প্রবাসী

Subscribe To Our Newsletter

আপনার পক্ষে কি প্রতিদিন আমাদের সাইটে আসা সম্ভব হয় না? তাহলে আপনি আমাদের ইমেইল নিউজলেটার সাবসক্রাইব করতে পারেন। এর মাধ্যমে আমাদের নতুন কোনো পোষ্ট করলে আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার সন্ধান পেয়ে যাবেন আপনার নিজের ইমেইলের ইনবক্সে।

{ 2 comments… add one }
  • Lesar December 28, 2013, 4:47 pm

    অনেক ভালো একটি লেখা শেয়ার করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ

  • Md Rasel December 28, 2013, 8:07 pm

    আশিক ভাই্ আপনার বাস্তব অভিজ্ঞতা আমাদের শেয়ার করাতে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ।আশাকরি আপনার ল্যাপটপে সংরহে থাকা বিশেষ বিশেষ ঘটনা গুলো আমাদেরকে শেয়ার করবেন।

Leave a Comment

alexa toolbar

Get our toolbar!

সর্ব কালের ৮ জন সেরা লেখক

    সর্বাধিক পঠিত

    Popular Posts

    আমাদের সম্পর্কে | যোগাযোগ | সাইট ম্যাপ

    কপিরাইট ©২০১১-২০২০ । আমিওপারি ডট কম

    পূর্ব অনুমতি ব্যতিরেকে কোনো লেখা বা মন্তব্য আংশিক বা পূর্ণভাবে অন্য কোন ওয়েবসাইট বা মিডিয়াতে প্রকাশ করা যাবে না।

    ডিজাইন এবং ডেভেলপঃ

    Amiopari.com